পিএইচপি কোডে মন্তব‍্য যোগ করা

পিএইচপিতে কোড লেখার সময় সেসব কোডের বিভিন্ন বিষয় অন‍্যরা যাতে বুঝতে পারে সেজন‍্য সেসব কোড সম্পর্কে মন্তব‍্য যোগ করা যেতে পারে। মন্তব‍্য দেখে অন‍্যরা সেই কোডের অনেক কিছুই বুঝতে পারে। আবার কোডের কোনো অংশ সাময়িকভাবে অকার্যকর রাখার জন‍্যও সেটিকে মন্তব‍্য হিসেবে রাখা যেতে পারে। পিএইচপি কোডের মাঝে আপনি তিনভাবে মন্তব্য যোগ করতে পারেন। সচরাচর ব্যবহৃত এক লাইনের মন্তব্যের জন্য লাইনের শুরুতেই // ব্যবহার করা হয়। ফলে এই // চিহ্নের পর ওই লাইনে আর যা কিছুই থাকুক না কেন তা আর পালিত হবে না। যেমন:

এখানে প্রথম লাইনটি একটি মন্তব্য। সেটি স্ক্রিনে দেখা যাবে না। পরের লাইনের ফলে স্ক্রিনে This is a test বাক্যটি দেখা যাবে। এক লাইনের মন্তব্য আমরা আরেকভাবেও প্রকাশ করতে পারি:

এটিকে ইউনিক্সের শেল স্টাইল মন্তব্য বলা হয়ে থাকে। এধরনের মন্তব্য লাইনের প্রথমে হ্যাশ চিহ্ন (#) ব্যবহার করা হয়। উভয় পদ্ধতিই পিএইচপিতে ব্যবহার করা হয়। তবে কারো কারো মতে এ দুটি বাস্তবে একটু ভিন্নভাবে ব্যবহার করা দরকার। প্রথম ধরনের মন্তব্য ব্যবহার করা দরকার কোনো কোড সম্পর্কে সাধারণ মন্তব্যের জন্য। আর শেল স্টাইলের মন্তব্য ব্যবহার করা দরকার ওই কোডের কনফিগারেশন বা মান সম্পর্কিত মন্তব্যের জন্য। এ নিয়ম মেনে চললে আপনারও কিছু উপকার হতে পারে। আপনি একধিক লাইনেও মন্তব্য ব্যবহার করতে পারেন।

একাধিক লাইনের মন্তব্যের শুরু হয় /* দিয়ে আর শেষ হয় */ দিয়ে। এই দুই চিহ্নের মাঝে যা কিছু থাকবে তার সবই মন্তব্য হিসেবে গণ্য হবে। যেমন:

পিএইচপি কোডে মন্তব্য যোগ করলে পরে তা অনেক কাজে লাগতে পারে। বাস্তবে যখন কোনো ফাংশন তৈরি করছেন কিংবা কোনো ভ্যারিয়েবল সংজ্ঞায়িত করছেন তখন মন্তব্যে উল্লেখ করুন সেটি কোন উদ্দেশ্যে করছেন এবং তা কীভাবে কখন ব্যবহার করতে হবে। এর ফলে অন্য কেউ সেই কোড দেখে বুঝতে পারবে এবং আপনিও কিছুদিন পরে সেই জিনিস মনে রাখতে পারবেন। এভাবে মন্তব্য লিখে না রাখলে দেখবেন ছয়মাস পরে আপনিই ভুলে গেছেন কেন সেই ফাংশন তৈরি করেছেন, আর কীভাবেই বা ব্যবহার করবেন।

Other posts of the series

  1. পিএইচপি কোডে মন্তব‍্য যোগ করা