দৃষ্টিভঙ্গি- মনের জানালা

আপনি একটা স্বচ্ছ জানালা দিয়ে বাইরে তাকান, সবকিছু স্পষ্ট দেখতে পাবেন। কিন্তু এই জানালায় যদি ধুলি জমে – বাইরে ঝাপসা দেখবেন। জানালায় প্রতিদিনই ধুলি জমে, এটা পরিষ্কার না করলে স্বচ্ছতা হারায়, তখন আর বাইরের জিনিস ভালো করে দেখা যাবে না। আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির ক্ষেত্রেও তাই ঘটে।

আমাদের জীবনের শুরুই হয় এরকম পরিষ্কার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে। শিশুদের কথা চিন্তা করুন। তারা জানে না এই জীবনের কুটিলতা, জটিলতা – সব বিষয়েই তারা থাকে আশাবাদী, ইতিবাচক। শিশুরা থাকে হাস্যোজ্জ্বল, প্রাণ প্রাচুর্যে ভরা। তারা নূতন কিছু যাচাই করে দেখতে ভালবাসে, নূতনকে জানতে ভালবাসে।

কোনো শিশু যখন হাঁটতে শিখছে তখনকার কথা চিন্তা করুন। তারা হাঁটার চেষ্টা করতে গিয়ে পড়ে যায়, তারপর কী করে? তারা কী করে না তা বলতে পারি – তারা অন্যকে দোষ দেয় না, কার্পেটকে গালিগালাজ করে না, পড়ে গেছে বলে হাঁটার চেষ্টা বাদ দেয় না। সে তার মা-বাবার দিকে আঙুল তুলিয়ে দেখায় না যে তাদের সাহায্য না পাওয়ায় সে হাঁটতে পারছে না। সে হাল ছাড়ে না, চেষ্টা করতে থাকে। এভাবেই একবার-দুইবার শতবার করে সে হাঁটতে শেখে। তার এই দৃষ্টিভঙ্গি পুরোটাই ইতিবাচক – তার এই জানালা পুরোটাই পরিষ্কার। এই পরিষ্কার জানালা দিয়ে বাইরে তাকায় বলেই সে মনে করে সে পুরো জগতটা জয় করতে পারবে।

তারপর কী ঘটে? তার দৃষ্টিভঙ্গিও বদলায়, সেই জানালায় ধুলো-ময়লা জমতে থাকে। এটা ঘটে থাকে এভাবে:

  • আমাদের পিতা-মাতা ও শিক্ষকরা আমাদের সমালোচনা করতে থাকে, অন্যদের সাথে তুলনা করতে থাকে – এতে আমাদের সেই মনের জানালা ঝাপসা হতে থাকে।
  • আমাদের সহপাঠীরা, বন্ধুরা আমাদের সমালোচনা করে, আমাদের দোষ-ত্রুটি দেখাতে থাকে, জানালা আরো ঘোলাটে হতে থাকে।
  • আমরা আমাদের প্রিয়জনদের নিকট প্রত্যাখ্যাত হতে থাকি, নিজেকে তখন অপ্রয়োজনীয়, অপর্যাপ্ত মনে করতে থাকি – জানালা আরো ঘোলাটে হয়।
  • আমরা অনেক কাজ করতে গিয়ে ব্যর্থ হই, অন্যদের সমালোচনার মুখে পড়ি – তখন আমাদের এই মনের জানালায় ধুলোর স্তর গভীর হতে থাকে।
  • চারপাশে সমালোচনা, প্রত্যাখ্যান, তুলনা এসবের কারণে আমাদের নিজেদের মধ্যেই নিজের সামর্থ্য নিয়ে সন্দেহের উদ্রেক হয় – তখন মনের জানালা পুরোটাই মেঘাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে।

লক্ষ্য করলে দেখবেন যে এভাবে বিভিন্নভাবে সেই জানালায় ময়লা জমতেই থাকে, অনেকেই এটা খেয়ালই করি না। এই ঝাপসা-মেঘাচ্ছন্ন জানালা দিয়েই আমরা বাইরে তাকাতে থাকি, যা দেখি তাকেই বাস্তবতা বলে মেনে নিই। এর ফলে পৃথিবী সম্পর্কেই আামাদের ধারণাটা নেতিবাচক হয়ে পড়ে। আমরা বিষন্ন হই, স্বপ্ন দেখা ছেড়ে দিই – কারণ আমরা দৃষ্টিভঙ্গির এই জানালা পরিষ্কার করতে পারি না।

আপনি যদি এই জানালা পরিষ্কার করতে জানেন, আর নিয়মিত সেটি পরিষ্কার করেন তাহলে বাইরে তাকিয়ে আপনি সুন্দর পৃথিবীকেই দেখতে পাবেন। তাই আপনাকে জানতে হবে কীভাবে মনের এই জানালাকে পরিষ্কার রাখতে হয়; তার সংকল্প করতে হবে যে আপনি নিয়মিত এই জানালা পরিষ্কার রাখবেন। কীভাবে করবেন সেটি? আছে, খুবই সহজ উপায়। সেটাই আমরা জানব পরে।

Series Navigation<< দৃষ্টিভঙ্গি কী?

Leave a Reply

%d bloggers like this: