পাগল / কাহলিল জিবরান

তোমরা জানতে চাও আমি কীভাবে পাগল হলাম। ঘটনাটি এই: একদিন, অনেক দেবতার জন্মের আগে, আমি জেগে উঠি এক গভীর নিদ্রা থেকে, আর দেখি আমার সব মুখোশ চুরি হয়ে গেছে – সাতটি মুখোশ যা আমি পরিধান করেছি সাতটি জীবনে, তাই চিৎকার করতে করতে মুখোশহীন আমি ছুটে চললাম জনাকীর্ন সড়কে, “চোর, সব চোর, সব অভিশপ্ত চোর”।

নর ও নারীরা আমাকে পরিহাস করল, আর কেউ কেউ ভয়ে পেয়ে ঢুকে গেল তাদের বাড়িতে।

তারপর আমি পৌঁছে গেলাম এক বাজারে, ছাদের উপরে দাঁড়ানো এক যুবক চিৎকার করে বলল, “ও একটা পাগল”। আমি উপরে তাকালাম তাকে দেখতে; আর প্রথমবার সূর্য চুম্বন করল আমার নগ্ন মুখমন্ডল। প্রথমবার আমার নগ্ন মুখমন্ডলকে সূর্য চুমু খেতেই আমার আত্মা প্রজ্জ্বলিত হলো সূর্যের প্রতি ভালবাসায়, এরপর আমি আর আমার মুখোশ চাইনি পেতে ফিরে। তৎক্ষনাৎ চিৎকার করে উঠলাম আমি, ‘আশীর্বাদ, আশীর্বাদ সেইসব চোরদের জন্য যা করেছে চুরি আমার মুখোশসব’।

এভাবেই আমি হলাম পাগল।

এবং তারপর থেকেই আমি খুঁজে পেয়েছি নি:সঙ্গতার স্বাধীনতা এবং আমাকে না বোঝার নিরাপত্তা, কারণ কেউ আমাদের বুঝতে পারলে আমাদের মাঝে গেঁথে দেয় কিছু দাসত্ব।

তবে আমি করতে চাইনা অহঙ্কার আমার নিরাপত্তার। কারাগারে নিবদ্ধ এক চোরও আরেক চোরের থেকে নিরাপদ।

Series Navigationজ্যোতির্বিদ / কাহলিল জিবরান >>

Leave a Reply

%d bloggers like this: