স্বপ্ন

মহৎ কিছু সৃষ্টির জন্য আপনাকে স্বপ্ন দেখতে শিখতে হবে, স্বপ্ন দেখতে হবে। সেই স্বপ্ন যত বড় হবে আপনার সৃষ্টি তত বড় হতে পারবে। স্বপ্না দেখা ছাড়া কেউ বড় কিছু করতে পারেনি। বড় স্বপ্ন দেখবেন, আর সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়নের জন্য নীরবে নিরলস কাজ করে যাবেন। সেটাই সাফল্যের পথ। আজকে ইন্টারনেটে কিছু খোঁজার জন্য কী করেন? গুগলে যান। এই গুগল কীভাবে তৈরি হলো জানেন?

গুগলের সহপ্রতিষ্ঠা ল্যারি পেজ-এর মুখ থেকেই শুনুন: ‘স্বপ্নকে ধাওয়া করার ব্যাপারে আমার একটা গল্প আছে … এই গল্প হলো স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করা পথ খুঁজে পাওয়ার গল্প … আমার এরকমই এক স্বপ্ন ছিল যখন আমার বয়স ২৩। আমি জেগে উঠলাম, আর ভাবলাম: আচ্ছা যদি পুরো ওয়েবকে ডাউনলোড করা যেত আর লিঙ্কগুলো সংরক্ষণ করা যেত তাহলে কেমন হয় … আমি একটা কলম হাতে তুলে নিলাম আর লিখতে শুরু করলাম! … সত্যি বলতে কি তখনও আমার মাথায় সার্চ ইঞ্জিন তৈরির চিন্তা আসেনি। আশেপাশেও এই ধারণা কোথাও ছিল না। কিন্তু এর অনেক পরে আমরা ওয়েবপেজকে স্তরে সাজানোর উপায় খুঁজে পেলাম যা একটা মহৎ সার্চ ইঞ্জিন তৈরি করল, এবং এভাবেই গুগলের জন্ম হলো। যখন বড় কোনো স্বপ্ন দেখেন, তখন অবশ্যই চেষ্টা করবেন সেটিকে বাস্তবায়নের।’

আমাদের সমস্যা হলো আমরা স্বপ্ন দেখতে ভয় পাই; কোনো স্বপ্ন দেখলেও সেটিকে স্বপ্ন বলে অবহেলা করি এবং ভুলে যাই। যেদিন আপনি নিজের স্বপ্নকে বাস্তবায়নের জন্য নিজেকে নিবেদিত করতে পারবেন সেদিনই সফল হবেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: