অতীতের ছায়ায়, বর্তমানের আলোয়

Estimated read time 1 min read

সময় নদীর মতো বয়ে চলে, কখনো থেমে থাকে না। কিন্তু আমাদের স্মৃতি, আমাদের অতীত, যেন জমাট বেঁধে থাকে মনের কোণে। যেন পুরোনো এক অ্যালবামের পাতা ওল্টালেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে অতীতের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না, আনন্দ-বেদনার সব দৃশ্য।

একটি ছোট্ট গ্রাম, নদীর ধারে ঘেরা, আমাদের শৈশবের স্মৃতির ঠিকানা। সকালে পাখির কলকাকলি, দুপুরে গরুর গাড়ির চাকার শব্দ, সন্ধ্যায় বাতাসে ধানের গন্ধ – সব মিলিয়ে এক অপার্থিব অনুভূতি। আমাদের ছোট্ট জীবন, ছোট্ট সংসার, ছোট্ট আনন্দ নিয়ে কেটে যেত দিন। কিন্তু সেই সোনালী দিনগুলো কেড়ে নিয়েছিল এক ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। যেন এক নিমেষেই সব উল্টে-পাল্টে গেল। সবুজ শ্যামল গ্রাম যেন রুপান্তরিত হলো এক বিরান মরুভূমিতে। মানুষের চোখে-মুখে ভেসে উঠলো অসহায়ত্ব, হতাশা আর নিরাশার কালো ছায়া।

সেই দুর্যোগের পর আমরা গ্রাম ছেড়ে শহরে পাড়ি জমাই। শুরু হলো নতুন এক জীবন, নতুন এক সংগ্রাম। শহুরে জীবনের কোলাহল, ব্যস্ততা, প্রতিযোগিতা – সবই যেন আমাদের ছোট্ট মনের জন্য এক অচেনা অভিজ্ঞতা। তবুও আমরা হাল ছাড়িনি, লড়ে গেছি প্রতিকূলতার সাথে। আর সেই লড়াইয়ে জিতেছি আমরা, সফল হয়েছি আমাদের জীবনে।

কিন্তু সফলতার এই আলোর পিঠে লুকিয়ে আছে অতীতের সেই কালো অধ্যায়। মাঝে মাঝে ঘুম ভেঙে যায় সেই দুর্যোগের ভয়াবহ স্মৃতিতে। মনে পড়ে যায় সেইসব মুখ, যাদের হারিয়েছিলাম আমরা। কষ্ট হয়, বুকটা হাহাকার করে ওঠে। তবুও এগিয়ে যেতে হয়, বাঁচতে হয় বর্তমানকে।

অতীতের সেই দুঃসহ স্মৃতি আমাদের শিক্ষা দেয়, জীবনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে। আমাদের শেখায়, ক্ষণস্থায়ী এই জীবনে মানুষের জন্য কিছু করার তাগিদ অনুভব করতে। আর সেই শিক্ষাই আমাদের প্রেরণা যোগায় এগিয়ে চলার, সমাজের জন্য, দেশের জন্য কিছু করার।

আজ আমরা যখন সফলতার শিখরে, তখন ভুলে গেলে চলবে না সেই অতীত। সেই অতীতের কথা মনে রেখেই গড়তে হবে আমাদের বর্তমান, তৈরি করতে হবে আমাদের ভবিষ্যৎ। কারণ, অতীত যেমন আমাদের শিক্ষা দেয়, তেমনি আলো দেখায় ভবিষ্যতের পথে।

অতীতের ছায়া যেন কখনোই ঢেকে না ফেলে বর্তমানের আলো। বর্তমানকে উপভোগ করতে হবে, ভবিষ্যতের জন্য স্বপ্ন দেখতে হবে। কিন্তু সেই স্বপ্ন দেখতে হবে অতীতের শিক্ষা মাথায় রেখে। তাহলেই আমরা সফল হবো, সার্থক হবে আমাদের জীবন।

You May Also Like