অসহিষ্ণুতা: এক আত্মঘাতী ব্যাধি

Estimated read time 0 min read

অসহিষ্ণুতা, এ যেন এক ভয়াবহ ব্যাধি, যা আমাদের সমাজকে ধীরে ধীরে গ্রাস করে নিচ্ছে। ভিন্ন মত, ভিন্ন ধর্ম, ভিন্ন সংস্কৃতি — এসবের প্রতি আমাদের সহনশীলতা যেন ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। অথচ, এই বৈচিত্র্যই তো আমাদের সমাজকে সমৃদ্ধ করে।

একটি সমাজ গড়ে ওঠে নানা ধর্ম, নানা বর্ণের মানুষের সমন্বয়ে। যদি আমরা পরস্পরের মতামতকে সহ্য না করতে পারি, যদি আমরা ভিন্ন ধর্মের মানুষকে সম্মান না করতে পারি, তাহলে সে সমাজ কখনোই শান্তিপূর্ণ হতে পারে না।

অসহিষ্ণুতার বিষবাষ্প ছড়িয়ে পড়লে সে সমাজে কেবল বিদ্বেষ, হিংসা আর অশান্তিই বিরাজ করবে। অসহিষ্ণুতার বীজ বপন হয় শৈশবে। পরিবার, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সমাজ — সর্বত্রই যদি শিশুদের মনে সহিষ্ণুতার শিক্ষা দেওয়া হয়, তবে তারা বড় হয়ে সহনশীল মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবে। অন্যের মতকে সম্মান করা, ভিন্ন ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া, ভিন্ন সংস্কৃতিকে উপলব্ধি করা — এসবই শৈশব থেকেই শেখাতে হবে।

আমাদের মনে রাখতে হবে, আমরা সবাই মানুষ। আমাদের ধর্ম, বর্ণ, ভাষা আলাদা হতে পারে, কিন্তু আমাদের মৌলিক চাহিদা একই। আমরা সবাই শান্তি চাই, সুখ চাই। আর এই শান্তি, এই সুখ কেবল সহিষ্ণুতার মাধ্যমেই অর্জন করা সম্ভব।

অসহিষ্ণুতা যেন আমাদের সমাজকে কখনোই গ্রাস করে নিতে না পারে। আসুন, আমরা সবাই মিলে সহিষ্ণুতার এক দৃঢ় প্রত্যয় গড়ে তুলি। শুধু তবেই আমাদের সমাজ হবে প্রকৃত অর্থেই সুন্দর, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ।

You May Also Like