লিডারশিপ

Estimated read time 1 min read

সুপ্রিম কোর্টের মহান বিচারপতি অলিভার ওয়েন্ডেল হোমস একবার বলেছিলেন যে তিন ধরনের মানুষ আছে। কিছু লোক আছে যারা কিছু জিনিস ঘটায়, কিছু লোক আছে যারা দেখে কী ঘটছে, আর কিছু লোক আছে যারা সামান্যতম ধারণা রাখে না কী ঘটছে। এ বইটিতে আমরা তাদের নিয়ে কথা বলতে যাচ্ছি যারা কাজের ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেয় এবং কিছু ঘটায়। আমাদের সমাজে নেতৃত্বের প্রয়োজন আছে। আমাদের বাড়িতে, আমাদের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে, আমাদের ব্যক্তিগত ও সরকারী সমিতিতে এবং আমাদের সরকারে নেতৃত্বের প্রয়োজন আছে। আমাদের আগের চেয়ে বেশি নেতৃত্ব দরকার। বিশেষ করে, আমাদেরকে ভবিষ্যতে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের নেতৃত্ব প্রয়োজন। আমাদের এমন লোক দরকার যাদের দূরদৃষ্টি ও সাহস আছে, যাদের নতুন সমুদ্রে পথ বের করার ক্ষমতা আছে এবং নতুন পথ দেখানোর ক্ষমতা আছে। আমাদের দু’ধরনের নেতা দরকার। প্রথম ধরনেরটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ: লেনদেনকারী নেতা। লেনদেনের নেতা সেই ব্যক্তি যিনি অন্যদের সাথে এবং অন্যদের মাধ্যমে কাজ করেন। আমাদের দ্বিতীয় ধরনের নেতা দরকার যারা রূপান্তরকামী নেতা। এসব নেতা পথ নির্মাতা। এসব নেতা দূরদর্শী। এসব নেতাই সেই নেতা যারা মানুষকে অনুপ্রাণিত করেন, উৎসাহিত করেন এবং মানুষকে এমন পর্যায়ে পারফর্ম করার ক্ষমতা দেন যা তারা আগে কখনও করেনি। আমাদের প্রতিষ্ঠানে, বিশেষ করে আমাদের ব্যবসায়, নেতৃত্বের খুব প্রয়োজন, কারণ আজকের ব্যবসা ও প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ব্যক্তিরা অনেক কঠিন সময় পার করে, তাদের অনেক চাহিদা, তারা অনেক বেশি বিশ্লেষণী এবং স্বার্থপর। শুধু কাউকে চাকরি দেয়া এবং সেই ব্যক্তিকে কী করতে হবে তা বলাই এখন আর যথেষ্ট নয়। মানুষ অংশগ্রহণ করতে চায়। তারা তাদের কাজ নিয়ে আলোচনা করতে চায়। তারা তাদের কর্মক্ষমতা সম্পর্কে নিয়মিত মতামত চায়। তারা জানতে চায়, “এতে আমার জন্য কী আছে?” আজকাল লোকে চাকরির খোঁজে গেলে তারা এই মনোভাব গ্রহণ করে, “আমি কেন তোমার জন্য কাজ করবো?” যে কোনো প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে যাওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে নেতৃত্ব। নেতৃত্বের দুটি মহান সংজ্ঞা আছে যা আমি পছন্দ করি, বিশেষ করে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে। প্রথমটি হচ্ছে:নেতৃত্ব হল সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অসাধারণ কর্মক্ষমতা আদায় করার ক্ষমতা। আরেকটি সংজ্ঞা হল: নেতৃত্ব হচ্ছে অনুসারী পাওয়ার ক্ষমতা। আজ, যে নেতৃত্বের অবস্থান থেকে আসে অথবা অর্থ কিংবা কর্তৃত্ব থেকে আসে (যাকে বলা হয় কথিত নেতৃত্ব) তা স্বল্পস্থায়ী। যেখানে মানুষ সিদ্ধান্ত নেয় যে তারা দিক নির্দেশনা, পথ নির্দেশনা এবং অন্য কারো দর্শন অনুসরণ করবে কেবল সেখানেই নেতৃত্ব দীর্ঘস্থায়ী হয়। অন্য কথায়, এটা হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবী রূপ যা আজকে আমাদের সেরা নেতাদেরকে চিহ্নিত করে।

পাওয়া যাবে বইটই অ‍্যাপে

You May Also Like

More From Author